1. admin@sbarta24.com : Rahat : Anwar Babul
ব্যাংক কর্মকর্তা হত্যার দায় স্বীকার করলেন হাসনুর - Home
সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ০৭:০৪ অপরাহ্ন
এই মুহূর্তে
Welcome To Our Website... করোনা মুক্তিতে দেশ ও জাতির জন্য ঈদ জামাতে বিশেষ দোয়া, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে কালবৈশাখী ঝড়ের আভাস। টিকা নিয়ে নতুন ঘোষণা রাশিয়ার, এক ডোজই রুখে দেবে করোনার সব ভ্যারিয়েন্ট....

ব্যাংক কর্মকর্তা হত্যার দায় স্বীকার করলেন হাসনুর

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৫ মার্চ, ২০২১
  • ৮০ বার পঠিত

কিল-ঘুষিতেই ব্যাংকার মওদুদ আহমদের মৃত্যু হয়েছে বলে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন অটোরিকশা চালক নোমান হাসনুর।

বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) বিকালে সিলেট মহানগর হাকিম আদালত-১ এর বিচারক সাইফুর রহমান এই জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে হাসনুর জানান, ভাড়া নিয়ে বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে ব্যাংকার মওদুদ আহমেদকে জোরে ঘুষি মারলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। অবস্থা দেখে ভয়ে তিনি পালিয়ে যান। পরে খবর পান মওদুদ মারা গেছেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মিজানুর রহমান জানান, জবানবন্দি রেকর্ডের পর আসামি নোমান হাসনুরকে বিচারকের নির্দেশে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি আদালতে আত্মসমর্পণ করেন অটোরিকশা চালাক নোমান হাসনুর। ওইদিন পুলিশ ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করলে আদালত ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড চলাকালে প্রথমে ১৬১ ধারায় হত্যার স্বীকারোক্তি দেন নোমান হাসনুর। বৃহস্পতিবার আদালতে হাজির করলে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেন ১৬৪ ধারায়।

উল্লেখ্য, গত ২০ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় নগরীর কোর্ট পয়েন্ট এলাকায় ভাড়া নিয়ে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে ব্যাংক কর্মকর্তা মওদুদ আহমদকে (৩৫) পিটিয়ে গুরুতর আহত করে সিএনজি অটোরিকশা চালক নোমান ও তার সহযোগীরা। পরে তাকে হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এই হত্যাকান্ড ধামাচাপা দিতে সড়ক দুর্ঘটনা বলে প্রচার চালান অটোরিকশা চালকরা। ঘটনা নিয়ে রহস্য দেখা দেওয়ায় দ্রুত অনুসন্ধানে নামে পুলিশ। পরে পুলিশ নিশ্চিত হয় যে, মওদুদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এরপরই ঘাতকরা আত্মগোপনে চলে যান। পরে শ্রমিক নেতাদের সহযোগীতায় ঢাকা থেকে অভিযুক্ত নোমান হাসনুকে সিলেটে নিয়ে আসে পুলিশ।

এ ঘটনায় রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) নিহত মওদুদের বড় ভাই আবদুল ওয়াদুদ বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। মামলায় অটোরিকশা চালক নোমান হাছনুরের নাম উল্লেখ ছাড়াও অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে। নোমান হাছনুর সিলেট সদর উপজেলার জালালাবাদ ইউনিয়নের টুকেরগাঁও পশ্চিমপাড়া গ্রামের আবদুল হান্নানের ছেলে।

নিহত মওদুদ আহমেদ ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার টেংগুরিপাড়া গ্রামের আবদুল ওয়াহেদের ছেলে। তিনি সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় অগ্রণী ব্যাংকের হরিপুর গ্যাস ফিল্ড শাখায় অফিসার (ক্যাশ) হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

এদিকে, মওদুদ হত্যাকান্ড ধামাচাপা দিতে সড়ক দুর্ঘটনা বলে প্রচার চালান অটোরিকশা চালকরা। পরে ঘটনা নিয়ে রহস্য দেখা দিলে অনুসন্ধান শুরু করে পুলিশ। অনসন্ধানে মওদুদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে নিশ্চিত হয় পুলিশ।

আরও খবর

Visitors online – 3888
users – 4
guests – 3763
bots – 121
The maximum number of visits was – 2021-06-15
all visitors – 6342
users – 17
guests – 5630
bots – 695