1. admin@sbarta24.com : Rahat : Anwar Babul
আ.লীগের সঙ্গে প্রশাসনের সংঘর্ষ ব্যর্থ রাষ্ট্রের লক্ষণ: ফখরুল - Home
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:০২ পূর্বাহ্ন
এই মুহূর্তে
Welcome To Our Website... করোনা মুক্তিতে দেশ ও জাতির জন্য ঈদ জামাতে বিশেষ দোয়া, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে কালবৈশাখী ঝড়ের আভাস। টিকা নিয়ে নতুন ঘোষণা রাশিয়ার, এক ডোজই রুখে দেবে করোনার সব ভ্যারিয়েন্ট....

আ.লীগের সঙ্গে প্রশাসনের সংঘর্ষ ব্যর্থ রাষ্ট্রের লক্ষণ: ফখরুল

ডেস্ক রিপোর্টঃ
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২০ আগস্ট, ২০২১
  • ৯৫ বার পঠিত

আওয়ামী লীগের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের সঙ্গে প্রশাসনের সংঘাতময় পরিস্থিতি ‘ব্যর্থ রাষ্ট্রের লক্ষণ’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় বিএনপির সাবেক মহাসচিব ব্যারিস্টার আবদুস সালাম তালুকদারের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এ ভার্চুয়াল আলোচনা সভা তিনি এসব কথা বলেন।

ব্যারিস্টার আবদুস সালাম স্মৃতি সংসদের সভাপতি গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম খানের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, স্মৃতি সংসদের এম সিরাজুল হক প্রমুখ। ভার্চুয়াল এ আলোচনায় ব্যারিস্টার সালাম তালুকদারের সহধর্মিনী মাহমুদা সালাম, একমাত্র কন্যা সালিমা বেগমসহ স্বজনরা যুক্ত ছিলেন।

তিনি বলেন, জনগণের সঙ্গে আওয়ামী লীগের কোনো সম্পর্ক নেই। এখন নির্বাচিত প্রতিনিধি বলতে সরকার যাদের বোঝাচ্ছে, তারা আওয়ামী লীগের। তাদের সঙ্গে প্রশাসনের সম্মুখযুদ্ধ শুরু হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজ আমাদের নেতা নির্বাসিত অবস্থায় বহু দূরে অবস্থান করছেন। আমাদের নেত্রী এখনো বন্দি অবস্থায় আছেন। তাকে মুক্ত করা, নেতাকে দেশে ফিরিয়ে আনা, দেশে একটি গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে আমাদের আজ ঐক্যবদ্ধ হতে হবে, সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে, দলকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, শুধু বরিশাল নয়, ইতোপূর্বে অনেক জায়গায় আমরা দেখেছি যে, আওয়ামী লীগের যারা দায়িত্বে আছেন, প্রশাসনের সঙ্গে তাদের একটা সংঘর্ষ হচ্ছে, সংঘাত হচ্ছে। বাংলাদেশ বর্তমানে রাষ্ট্র হিসেবে যে ব্যর্থ, তারই লক্ষণ এটি।’

তিনি বলেন, অন্য গণতান্ত্রিক শক্তিগুলোকে ঐক্যবদ্ধ করে একটি সংগ্রাম ও লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে এ দানবীয় শক্তিকে পরাজিত করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে। নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের মধ্য দিয়ে সত্যিকার অর্থে একটি জনপ্রতিনিধিত্বমূলক সরকার গঠন, একটি পার্লামেন্ট গঠনের লক্ষ্যে আমাদের কাজ করতে হবে, সংগ্রাম করতে হবে, লড়াই করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান সরকার মানুষের অধিকারে বিশ্বাস করে না, তারা মানবাধিকারে বিশ্বাস করে না। শুধুমাত্র আওয়ামী লীগ নিজেরা ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য এবং তাদের যে লক্ষ্য ১৯৭৫ সালে সফল করতে পারেনি- সেই একদলীয় একটি রাষ্ট্র ব্যবস্থা বাকশাল প্রতিষ্ঠার জন্য তারা গণতন্ত্র ধ্বংস করে আজ জনগণের মাথার ওপর চেপে বসে আছে।

আরও খবর

Visitors online – 270
users – 0
guests – 242
bots – 28
The maximum number of visits was – 2021-07-12
all visitors – 9805
users – 12
guests – 9540
bots – 253